ব্যালেন্স ট্যাংক লিক হয়ে উল্টে যায় ফেরিটি

সাতকাহন ডেস্ক

মানিকগঞ্জের পাটুরিয়ায় ৫ নম্বর ঘাট পন্টুনে আমানত শাহ নামের রো রো ফেরিটি পৌঁছানোর ২ মিনিটের মধ্যেই উল্টে গেছে।

বুধবার সকাল পৌনে ১০টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। দুপুর সাড়ে ১২টা পর্যন্ত হতাহতের কোনো খবর পাওয়া যায়নি বলে জানান ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্স ঢাকা বিভাগের উপপরিচালক দিনমণি শর্মা।

তিনি আরও জানান, এখন পর্যন্ত কোনো হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি। আমাদের কাছে কেউ নিখোঁজের দাবি নিয়েও আসেনি। পাঁচজন ডুবুরি উদ্ধার অভিযানে কাজ করছেন। ঢাকা থেকে আরো দুটি ইউনিট আসছে।

তিনি জানান, ফেরির নিচের অংশে ব্যালেন্স ট্যাংক থাকে। ব্যালেন্স ট্যাংক পানিপূর্ণ এবং কিছুটা খালি থাকে। কোনো অংশে হয়তো লিক করে পানি ঢুকে ফেরিটি ব্যালেন্স হারিয়ে ফেলে এবং এক সারিতে লোড বেশি থাকায় বাম দিকে ফেরিটি উল্টে যায়। ফেরিতে ১৪টি কাভার্ড ভ্যান, তিনটি ট্রাক ও ৮টি মোটরসাইকেল ছিল।

ওই ফেরিতে ছিলেন যশোরের মণিরামপুরের মোরটসাইকেলচালক অমল ভট্টাচার্য। তিনি ঢাকা পোস্টকে বলেন, দৌলতদিয়া থেকে ৯টা ১৫ মিনিটে ফেরিটি পাটুরিয়ার উদ্দেশে ছাড়ে। ৯টা ৪৫ মিনিটে ফেরিটি পাটুরিয়া ঘাটে পৌঁছায়। তখন শোনা যায়, ফেরিতে প্রচুর পানি ঢুকছে। তারপর আস্তে আস্তে ফেরিটি কাত হয়ে উল্টে যায়।

তিনি আরও বলেন, তখন মাত্র দু-একটি যানবাহন নামতে পেরেছে। যখন ফেরিটি কাত হয়ে ডুবে যাচ্ছে তখন মোটরসাইকেল রেখে সাঁতার কাটা শুরু করি। পরে উঠতে না পেরে ঘাটের একটি চেইন ধরি। একপর্যায়ে স্থানীয়রা আমাকে তুলে নেয়।

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-পরিবহন করপোরেশন (বিআইডব্লিউটিসি) আরিচা শাখার উপমহাব্যবস্থাপক মো. জিল্লুর রহমান ফেরি উল্টে যাওয়ার তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, রাজবাড়ীর গোয়ালন্দের দৌলতদিয়া ঘাট থেকে যানবাহন লোড করে পাটুরিয়ার ৫ নম্বর ফেরিঘাটে নোঙর করে বড় আকারের রো রো ফেরি আমানত শাহ। দুই থেকে তিনটি যানবাহন নামার পরপরই ফেরিটি উল্টে যায়।

খবর পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে ঘটনাস্থলে পৌঁছে ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি ইউনিট কাজ করছে বলে জানা গেছে। এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত হতাহতের কোনো খবর পাওয়া যায়নি।